> সংবাদ শিরোনাম
garls school

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবন তৈরীতে অনিয়মের অভিযোগ চার বছরেও শেষ হয়নি ভবন নির্মাণ কাজ

* স্থবির হয়ে আছে দুটি ভবনের কাজ
* একতলা ছাদ করেই ক্ষ্যান্ত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান
* ইঞ্জিনিয়ার সেকশনকে দায়ি করছেন মামুন এন্টারপ্রাইজ।

আমিনুল ইসলাম: দক্ষিণখানে আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে দুটি ভবন তৈরীতে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা য়ায়, পৃথক দুটি ছয় তলা বিশিষ্ঠ ভবন তৈরীর একটি ১৮ সালের শেষের দিকে কাজ শুরু হয়। যার টেন্ডার নম্বর হচ্ছে২১১৯২৭ এবং ১৯ সালের প্রথম দিকে একই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আরো একটি ভবন কাজ শুরু হয় যার টেন্ডার নম্বর হচেছ ২৩৭৫৩৮। ওয়ার্ক অর্ডারে নির্ধারিত সময় উল্লেখ থাকলেও শেষ হওয়ার আগেই দুটি প্রতিষ্ঠানের কাজ বন্দ হয়ে যায়।

যথা সময়ে কাজ শেষ করার জন্য সরকারি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সময় বেধে দিলেও এখনো পর্যন্ত একটি ভবন মাত্র একটি ছাদ করে স্তুব আকারে পড়ে আছে যা সরকারি রাজস্ব খরচে হবার কথা ছিল। অপর  ভবনটি বেসরকারি খরচে নির্মীত হলেও চার বছরেও নির্মাণ কাজ শেষ করতে পারেনি মেসার্স ফেয়ার ম্যাসেঞ্জার প্রতিষ্ঠানটি এমনটি অভিযোগ স্থানীয়দের। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স ফেয়ার কন্সট্রাকশনের ম্যানেজার জাহাঙ্গির জানান, করোনা মহামারির কারনে কাজে বিলম্বিত হচ্ছে। আগে প্রতিটি জিনিস পত্রের দাম কম ছিল এখন ৫০ হাজার টাকার রড হইছে ৯০ হাজার টাকা।কোম্পানির পরিচালকের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি বলেন,আপনাকে অফিসে এসে কথা বলতে হবে। ফোন নম্বর দেয়া যাবে না।

সরকারি খরচে ১৮ সালে এবং অপরটি ২০১৯ এ শুরু হয়ে দুবছরের মধ্যে কাজ শেষ হবার কথা থাকলেও চার বছরেও শেষ হয়নি নির্মাণ কাজ। একটি মাত্র ছাদ নিয়ে দাড়িয়ে আছে নির্মানাধীন একটি ভবন। ভবন তৈরীর সরঞ্জাম বিদ্যালয়ের মাঠে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা যায়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায় ১৫ শত শিক্ষার্থী পাঠ্যদানে আসে কিন্তু শ্রেণি কক্ষ সংকির্ণ থাকায় দুই শিফটের মাধ্যমে পাঠ্যদান দিতে হচ্ছে বলে জানান, প্রধান শিক্ষক এ.কে.এম ফারুকুজ্জামান।
দুই শিফটের কারনে অনেক শিক্ষার্থী ঝরে পড়েছে বলেও জানান তিনি।

সরকারি খরচে নির্মিতব্ব ভবনে গিয়ে কয়েকজন শ্রমিকের উপস্থিতি চোখে পড়লেও কাজ বন্দ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।সেখানকার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মামুন এন্টারপ্রাইজের পরিচালক শহিদ জানান,এটার ড্রয়িংএ ভুল ছিল। নতুন করে ড্রয়িং করা হয়েছে। এটা কি ইঞ্জিনিয়ারদের গাফিলতি ছিল আপনি কি মনে করেন এমন প্রশ্নের উত্তরে শহিদ জানান,অবশ্যই এটা তাদের ভুলছিল বলে তিনি মন্তব্য করেন।এবিষয়ে সিনিয়র ইঞ্জিনিয়ার সারোয়ার বলেন, এখানে একজন ইঞ্জিনিয়ার দায়িত্বে আছেন। কেন এখনো কাজ শেষ হয় নি এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, পরবর্তিতে সময় বাড়ানো হয়েছে কি না দেখে বলতে হবে। তবে পরবর্তিতে জানানোর কথা থাকলেও তিনি কোন বিষয়ে সদ উত্তর দেননি।

ঢাকা মেট্র এর নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শওকত হাসান এর মুঠফোনে বার বার চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি ।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful