প্রচার-প্রচারণা ও জনপ্রিয়তায় এগিয়ে আছেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী গোলাম রকিব সোহন

মোঃ মাহাবুব আলম, নীলফামারীঃ নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই গরম হয়ে উঠছে রাজনীতির মাঠ। সকাল হতে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত পথে ঘাটে, পাড়া,মহল্লা, হাট,বাজারে ও চায়ের দোকানে চলে নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা।
নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার আসন্ন ২ নং কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জনপ্রিয় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আছেন, সৈয়দপুর উপজেলা ২নং কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, মোঃ গোলাম রকিব সোহন।
তাকে ঘিরেই সর্বত্র চলছে নির্বাচনী আলাপ- আলোচনা। তৃণমূলে ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে তাঁর।
দলের দুর্দিনের ত্যাগী কান্ডারী ও নিবেদিত প্রান
মোঃ গোলাম রকিব সোহন, কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হলে দলমত নির্বিশেষে সবাই জোটবদ্ধ হয়ে তাঁর পক্ষে নির্বাচনী প্রচার- প্রচারণায় মাঠে নামবে বলে বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায়।
ইউপি নির্বাচনের দিন যতোই ঘনিয়ে আসছে দলীয় নেতা-কর্মীরাও চাঙ্গা হয়ে উঠছেন। অনেকেই আগাম প্রচার-প্রচারণায় নেমে পড়েছেন।
সিনিয়র নেতাদের সাথেও নিয়মিত লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন চেয়ারম্যান প্রার্থীরা।
যে কোনো মূল্যেই হোক  মনোনয়ন পেতে জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন সরকার দলীয় বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

আসন্ন ২ নং কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন, সৈয়দপুর উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক, ও সাবেক ছাত্রনেতা,১৯৮৮/১৯৮৯ নিকসুর সাবেক ছাত্র সংসদ, মোঃ গোলাম রকিব সোহন।

কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের ভোটাদের ঘরে ঘরে গিয়ে দোয়া ও সমর্থন প্রার্থনা করেছেন তিনি।
দলের অনেক নেতা-কর্মী জানান, দলমত নির্বিশেষে মোঃ গোলাম রকিব সোহনের ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে নির্বাচনী এলাকায়। আবালবৃদ্ধা,ছাত্র ও যুব সমাজের মাঝেও ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে তাঁর।
দীর্ঘদিন যাবত দলের পক্ষে রাজপথে আন্দোলন ও সংগ্রামে সরব ভূমিকা থাকায়।

২ নং কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে দলীয় কর্মিরাও চাচ্ছেন।
এবিষয়ে ইউনিয়নের একাধিক নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, গোলাম রকিব সোহন  তৃণমূলের  জনপ্রিয় পছন্দের প্রার্থী। সব সময় তাঁকে মাঠে পাওয়া যায়।

বিগত ১৯৯৫-১৯৯৬ সালে অসহযোগ আন্দোলন সহ নীলনকশার নির্বাচন প্রহিত।
১৯৯৬ সালে অসহযোগ আন্দোলনে প্রত্যক্ষভাবে অংশগ্রহণ এবং ১৯৯৬ সালের ১৫ই ফেব্রুয়ারী নীলনকশার নির্বাচন প্রতিহত সহ জনতার মঞ্চের মাধ্যমে সরকার পতনের আন্দলোনে অংশগ্রহণ করেন।
১/১১ এর সময় ২০০৭ সালে ১৭ জুলাই জননেত্রী শেখ হাসিনার গ্রেফতারের প্রতিবাদে রাজপথে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। ২০১২-২০১৩ সালে যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির রায় কার্যকর করতে জামাত বিএনপি নৈরাজ্য প্রতিবাদে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন।
২০১৩ সালে ১২ই ডিসেম্বর রাজাকার কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকার হলে ১৪ই ডিসেম্বর জামায়াত শিবির ও বিএনপি দ্বারা মাননীয় সংসদ সদস্য মোঃ আসাদুজ্জামান নূর এর গাড়ি বহরে হামলার প্রতিবাদে বিভিন্ন আন্দলোনে অংশ গ্রহণ করেন।

তাঁরা আরো বলেন,মহামারি করোনা কালীন সময়ে কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের হত দরিদ্র পরিবার গুলোর মাঝে নগদ অর্থ ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন তিনি। তাঁরা বলেন জনাব মোঃ গোলাম রকিব সোহন-কে আসন্ন

২নং কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকার মনোনয়ন দেওয়া হলে,

তিনি বিপুল ভোটের ব্যবধানে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন তাঁরা শতভাগ আশাবাদী।
দলীয় নেতাকর্মীদের বিপদে-আপদে তাঁকে পাওয়া যায় বলেও বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে ।
দলের মিটিং মিছিল,সভা- সমাবেশ, আন্দোলন- সংগ্রামে গোলাম রকিব সোহনের উপস্থিতি লক্ষণীয়।
এবিষয়ে গোলাম রকিব সোহন বলেন‘ দীর্ঘদিন যাবত দলের জন্য মাঠে কাজ করে যাচ্ছি। সংগঠন-কে আরো সু-সংগঠিত করার লক্ষে দলের জন্য নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছি।তিনি আরো বলেন,
জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত-কে ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কে শক্তিশালী করার লক্ষে,
আসন্ন ২ নং কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে আমি নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী।
আমি নির্বাচিত হলে, এলাকাবাসীকে পরিছন্ন, বেকারত্ব সমস্যা সমাধান, বাল্যবিবাহ বন্ধ, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত শিক্ষাবান্ধব উন্নত নাগরিক সুবিধা প্রদান করবো।

তাই কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নবাসীর কাছে দোয়া ও সমর্থন কামনা করেছেন তিনি।