ভোলায় ঘুর্ণিঝড় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ উপহার

শামীম আহাম্মেদঃ ভোলায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ত্রাণ উপহার বিতরণ করেছে সদর উপজেলা প্রশাসন।

গত রবিবার সকালে ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নে বিচ্ছিন্ন চর রামদাসপুরে ক্ষতিগ্রস্থ দুইশতাধিক পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ উপহার পৌছে দেন ভোলা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।

এর আগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভেদুরিয়া ইউনিয়নের মাঝিরহাট এলাকার আশ্রয় প্রকল্পের ক্ষতিগ্রস্থ অর্ধশতাধিক পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ উপহার পৌছে দেন। ত্রাণ সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে, ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, চিনি ১ কেজি, চিড়া ২ কেজি, তৈল ১ কেজি, নুডুস ৫০ গ্রাম, ১ কেজি লবণ। ত্রাণ বিতরণ করেন।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, রাজাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো: মিজানুর রহমান খান, ভোলা প্রেস ক্লারের সাধারণ সম্পাদক অমিতাভ রায় অপু সহ প্রমুখ।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মিজানুর রহমান খান, বলেন ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে ভোলার বিভিন্ন এলাকায় অতি জোয়ারের পানিতে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে চিহ্নিত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার ত্রাণ সামগ্রী হিসেবে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মাধ্যমে এই ত্রান সামগ্রী পৌছে দেয়া হচ্ছে। প্রথম দিনে আমরা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের আশ্রয় প্রকল্পের ক্ষতিগ্রস্থ অর্ধশতাধিক পরিবারকে ত্রাণ দিয়ে শুরু করেছি।
এর পরে পর্যায় ক্রমে জেলার বাকি ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝেও পর্যায়ক্রমে ত্রান বিতরণ করা হবে।

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সৃষ্ট ঝড়ো বাতাসে সরকারি হিসাবে উপকূলীয় জেলা ভোলার ৭টি উপজেলার এগারো হাজার ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এর ফলে দুভোর্গে পরে জেলার ১ লাখ ৬৮ হাজার পরিবার। ঝড়ে জেলার আংশিক বিধ্বস্ত ৭৭৩০টি ঘর। সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত ৩৫৭৯টি ঘর। জেলার ৫টি উপজেলায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে। জেলায় নিখোঁজ রয়েছে ২’হাজার গবাদি পশু। জেলায় মারা গেছে ২জন। এছাড়াও সাড়ে ১৬ কিলোমিটার বাঁধ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।