বাগেরহাটে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত ভাবে মিথ্যা মামলা দায়ের – আইজিপি বরাবর অভিযোগ প্রদান

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আনন্দ টিভির বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি এবং দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার ফকিরহাট প্রতিনিধি ও স্থানীয় দৈনিক নওয়াপাড়া সংবাদের বিশেষ প্রতিনিধি শেখ সিহাব উদ্দিন রুবেলের বিরুদ্ধে ফকিরহাট মডেল থানায় পরিকল্পিত ভাবে চাঁদাবাজি মামলা দায়ের হওয়ায় গত ২৭/০৫/২১ ইং তারিখ ভুক্তভোগীর ছোট ভাই ‘আইজিপি’ বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।যাহার সিরিয়াল নং ৬১৮।

অভিযোগে সূত্রে জানা যায় – শেখ সিহাব উদ্দিন রুবেল বাগেরহাট জেলায় আনন্দ টিভির জেলা প্রতিনিধি,দৈনিক আমাদের সময় এবং দৈনিক নওয়াপাড়া পত্রিকায় দীর্ঘদিন যাবত সুনামের সাথে কাজ করার পাশাপাশি প্রেসক্লাব ফকিরহাট এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছে।প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে দেশে মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি বহাল থাকায় বিভিন্ন সময়ে মাদকের বিরুদ্ধে তথ্য প্রকাশ করে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীকে
সহযোগীতা করে আসায় এলাকার বেশকিছু মাদক ব্যাবসায়ী ও স্থানীয় পুলিশের সোর্স কাম সাংবাদিকদের চোখের কাটা ছিলো রুবেল এবং নয়ন।

এমতাবস্থায় সাংবাদিক শিহাব উদ্দিন রুবেল ও সাংবাদিক মেহেদি হাসান নয়ন তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে এসপি সার্কেল ছয়রুদ্দীন আহম্মেদ কর্তৃক ফকিরহাট মডেল থানার সরকারি ২টা গাছ কেটে বিক্রয় ও নিজের ব্যবহারের জন্য ফার্নিচার বানানো সহ থানা মালখানার জব্দকৃত গাড়ির চাকা খুলে নিজের ব্যাক্তিগত গাড়িতে লাগানোর কারন জানতে চাওয়ায় স্থানীয় পুলিশের সোর্স কাম সাংবাদিক ফারুক গংদের চক্রান্ত ও নানা নাটকীয়তায় গত ১৯/০৫/২১ইং তারিখে ফকিরহাট মডেল থানায় চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করা হয়।
কি ছিলো সেই নাটকীয়তায় :

ফারুক গংদের টার্গেট করে লোক ফাঁসানোর প্রক্রিয়ায় মামলার বাদী রাবেয়া খাতুন(২৪)কে ব্যবহার করে গত ১৭/০৫/২০২১ ইং তারিখ সন্ধ্যায় শাওন এবং আরিফ নামের দুই যুবককে তাদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়।পরে রাবেয়া তাদের হাতে চার হাজার টাকা দিয়ে সাংবাদিক রুবেল কে র‍্যাবের হাতে আটক তার ভাইকে ছাড়ানোর তদবীর করতে বলে। অপরদিকে টাকা হাতে দেয়ার সাথে সাথে পূূর্ব থেকে অবস্থান করা স্থানীয় দুই সোর্স কাম সাংবাদিক ফারুক এবং কাজী ইয়াছিন টাকা গ্রহনের দৃশ্য ভিডিও ধারন করে ফেসবুকে পোষ্ট করেই স্থানীয় ফকিরহাট মডেল থানার এস.আই মোস্তফাকে ডেকে এনে ধরিয়ে দেয়। থানা পুলিশ তখন বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে দুই পরিবারের কাছ থেকে দুইলক্ষ টাকা ঘুষ নিয়ে ৪৮ ঘন্টা পর শাওন এবং আরিফকে ছেড়ে দেয়া হলেও ঘটনাটি সাংবাদিক রুবেল জেনে যাওয়ায় তার প্রতিবাদ করে।এক পর্যায়ে অবস্থা বেগতিক দেখে ফারুক গ্রুপের সদস্যা সেই রাবেয়াকে দিয়ে উল্টো সম্পূর্ণ ঘটনাটি সাংবাদিক সিহাব উদ্দিন রুবেল ও মেহেদি হাসান নয়নের উপর চাপিয়ে দিয়ে এস পি সার্কেল ছয়রুদ্দিন এর ইন্দনে ওসি আবুসাইদ মোঃ খায়রুল আনামকে দিয়ে রাবেয়াকে বাদী করে সাংবাদিক রুবেল ও নয়নের বিরুদ্ধে ভূয়া চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করে।
সচেতন মহলের একটাই দাবি, সরেজমিনে টাকা সহ আটক কৃত দুই যুবককে ঘুষের বিনিময়ে থানা থেকে ৪৮ ঘন্টা আটক রেখে ছেড়ে দিয়ে কিভাবে আর কেনই বা একই ঘটনায় সাংবাদিক এর নামে মামলা হয় এ নিয়ে এলাকায় চলছে নানা গুঞ্জন।
মিথ্যা মামলায় বিভিন্ন মহলের নিন্দা ও ক্ষোভ :

এদিকে সাংবাদিক শেখ সিহাব উদ্দিন রুবেল ও মেহেদি হাসান নয়নের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত ভাবে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন চাঁদাবাজির মামলা দায়ের হওয়ায় প্রেসক্লাব সহ দেশের বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের পক্ষ থেকে মানব বন্ধন সহ সাংবাদিক নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।পাশাপাশি সাংবাদিক রুবেল এবং নয়নের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মিথ্যা ও ভিত্তিহীন মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করে নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে উল্লেখিত ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবার আহবান জানান সকলে।