গাজীপুর থেকে জঙ্গী সংগঠন ‘আনসার আল ইসলাম’ এর সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার। উগ্রবাদী লিফলেট উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  গাজীপুর জেলার হোতাপাড়া এলাকা হতে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন ‘আনসার আল ইসলাম’ এর এক সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪। তার কাছ থেকে উগ্রবাদী লিফলেট উদ্ধার করা হয়েছে।

জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের প্রত্যয় নিয়ে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই দৃঢ় অবস্থানে রয়েছে এলিট ফোর্স র‌্যাব। র‌্যাবের তৎপরতার কারণে বিভিন্ন সময়ে নাশকতা সৃষ্টিকারী জঙ্গী সংগঠন সমূহের শীর্ষ নেতা থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মীদেরকে গুরুত্বপূর্ণ অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে। র‌্যাবসহ অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর গোয়েন্দা নজরদারী ও অভিযানের ফলে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠনগুলোর নেতা কর্মীরা পুনরায় সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা চালিয়ে বার বার ব্যর্থ হয়েছে এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে ধৃত হয়েছে। জঙ্গী দমনে বাংলাদেশের সফলতা আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে বেশ প্রশংসিত।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩০ এপ্রিল ২০২১ ইং তারিখে র‌্যাব-৪ কর্তৃক গ্রেফতারকৃত “আনসার আল ইসলাম” এর ০২ সদস্য হতে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৪ এর একটি আভিযানিক দল গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর থানাধীন হোতাপাড়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে উগ্রবাদী কার্যক্রমে ব্যবহৃত মোবাইল এবং উগ্রবাদী লিফলেটসহ নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন “আনসার আল ইসলাম” এর একজন সক্রিয় সদস্য’কে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত আসামীর নাম সাব্বির হোসেন (২১) জেলা-কুমিল্লা।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামী নিজেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন ‘‘আনসার আল ইসলাম’’ এর সদস্য বলে স্বীকার করেছেন। সে এইচএসসি পর্যন্ত লেখাপড়া করে গাজীপুর জেলার জয়দেবপুরে একটি বেসরকারী কোম্পানীতে কর্মরত ছিলো। সে সাধারণত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে চরমপন্থার উস্কানি দেওয়ার প্লাটফর্ম হিসাবে ব্যবহার করে আসছিলো। জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায়, সে “আনসার আল ইসলাম” এর সক্রিয় সদস্য হিসেবে অন্যান্য সদস্যদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ স্থাপনের পাশাপাশি অন্যদের উদ্ধুদ্ধকরণের জন্যে অনলাইনে বিভিন্ন উগ্রবাদী লেখালেখি ও ভিডিও প্রচার এবং নিয়মিত চাঁদা সংগ্রহ করে আসছিলো। তার মোবাইল হতে বিভিন্ন উগ্রবাদী কথোপকথনের ও প্রচার প্রচারণার প্রমানাদি জব্দ করা হয়েছে। সে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ০৬ টি বিভিন্ন গ্রুপের এ্যাডমিন হিসেবে উগ্রবাদী কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলো।

গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি অন্যান্য সহোচরদের গ্রেফতারে র‌্যাব এর গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রয়েছে।