দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগে পিরোজপুরে দুই ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

হযরত আলী হিরু, পিরোজপুরঃ প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর পরিবারের বিভিন্ন সদস্যের নাম ভাঙ্গিয়ে আর্থিকসহ বিভিন্ন সুবিধা আদায় এবং অন্যান্য অভিযোগে পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার মালিখালী ইউপি চেয়ারম্যান সুমন মন্ডল মিঠুকে বরখাস্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি ভিজিডি চাল বিতরণে অনিয়মসহ দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে স্বরূপকাঠি উপজেলার জলাবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আশিষ কুমার বড়ালকেও বরখাস্ত করা হয়েছে। এরা দুইজনই আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো. আবু জাফর স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে জানা গেছে, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে সরকার কর্তৃক অসহায়দের জন্য দেয়া বিনামূল্যে বিতরণকৃত ঘর প্রদানের বিনিময়ে অর্থ গ্রহণ, সরকারি টিউবওয়েল প্রদানের বিনিময়ে নগদ অর্থ গ্রহণ এবং ভিজিডি উপকারভোগী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে সুমন মন্ডলের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ প্রাথমিক তদন্ত সত্য প্রমাণিত হয়। সুমন মন্ডল পরপর দুই বার মালিখালী ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং বর্তমান স্থগিত ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী।
উল্লেখ্য, মালিখালী ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংসদীয় আসন ও বঙ্গবন্ধুর জন্মস্থান টুঙ্গীপাড়ার লাগোয়া। এ সুবাদে সুমন মন্ডলের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর পরিবারের বিভিন্ন সদস্যের নাম ভাঙ্গিয়ে আর্থিকসহ বিভিন্ন সুবিধা গ্রহণের অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে। স্বরূপকাঠি উপজেলার জলাবাড়ি ইউনিয়নের বতর্মান চেয়ারম্যান আশীষ বড়ালের বিরুদ্ধে ভিজিডি চাল বিতরণে অনিয়মসহ দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ স্থানীয় তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় তাকেও বরখাস্ত করা হয়েছে। তিনিও আওয়ামী লীগ মনোনীত ইউপি চেয়ারম্যান। উভয়ের বিরুদ্ধে কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করা হয়েছে বলে পিরোজপুরের স্থানীয় সরকার বিভাগের ভারপ্রাপ্ত উপ পরিচালক চৌধুরী রওশন ইসলাম জানান।
উল্লেখ্য চেয়ারম্যান আশিষ কুমার বড়ালের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘুদের সমাধী ভেঙ্গে রাস্তা নির্মান, জেলেদর চাল বিতরণে অর্থ আদায়, ভিজিডি চাল বিতরণে অনিয়ম সহ দূর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার নিয়ে বিভিন্ন সময় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল।