দিনাজপুরের ফুলবাড়িতে টেন্ডারের নামে কোটি টাকা মুল্যের গাছ হরিলুট

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বার্হী প্রকৌশলী দিনাজপুর‘র সহায়তায় নামকাওয়াস্তে টেন্ডারের নামে রাস্তার দু‘ ধারের প্রায় কোটি টাকা মুল্যের সহস্রাধিক মুল্যবান আকাশমনি ও ইউক্লিপ্টাস গাছ লুট করেছে  কাজিহাল ইউপি চেয়ারম্যান মানিক রতন। এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট অভিযোগ করেও ন্যায় বিচার প্রাপ্তি হতে বঞ্চিত হয়েছে স্থানীয়রা।

২৫ এপ্রিল রবিবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত অভিযোগ করেন ফুলবাড়ি উপজেলার উক্ত এলাকার বাসিন্দারা।

লিখিত বক্তব্যে তারা বলেন,ফুলবাড়ি উপজেলার বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ নিয়ন্ত্রনাধীন পুটকিয়া মোড় হতে দেশমা পর্যন্ত প্রায় ৫ কি:মি: রাস্তার দু‘ধারের প্রায় ৬ শত গাছে টেন্ডার করে। এই টেন্ডারে নির্বাহী প্রকৌশলী দিনাজপুর ও ঠিকাদার মানিক রতন যোগসাজোশে নামকাওয়াস্ত মুল্য দেখিয়েছে ৫ লাখ ৪৭ হাজার টাকা।  যেখানে প্রকৃত মুল্য হওয়ার কথা প্রায় ৪০ লাখ টাকা।

এছাড়াও গত ১৩/০৪/২১ তারিখে ৩নং কাজিহাল ইউপি চেয়ারম্যান ও ঠিকাদার মানিক রতন বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের এসও রেজাউল ইসলাম রেজার সহযোগীতায় ওই সড়কের আরো ৪ শতাধিক গাছ নিজ ক্ষমতায় কেটে নিয়ে যাওয়ার পথে স্থানীয়রা আটক করে।

এব্যাপারে তাতক্ষনিক বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফুলবাড়ির নিকট লিখিত অভিযোগ করা হয় কিন্তু তিনি কোনো পদক্ষেপ গ্রহন করেননি। পরবর্তীতে ঠিকাদার মানিক রতন ক্ষিপ্ত হয়ে সন্ত্রাসী ও মাস্তান বাহিনী পাঠিয়ে ওই গাছগুলো জোরপূর্বক নিয়ে যায়। বিনাটেন্ডারে জোরপূর্বক কর্তনকৃত ৪০৮টি গাছের আনুমানিক মুল্য প্রায় ২৪ লাখ ৪৮ হাজার টাকা।

লিখিত বক্তব্যে তারা দাবী করেন, রাস্তার ধারের মুল্যবান ৬ শত গাছ ( ৫ লাখ ৪৭ হাজার) নামমাত্র টাকায় বিক্রি এবং জোরপূর্বক আরো ৪০৮টি গাছ কর্তনের বিষয়ে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকতাগন সরজমিন তদন্ত সাপেক্ষে অনিয়ম দূর্নীতির সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তিসহ সরকারের রাজস্ব ৫৫ লাখ টাকা আদায়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

সংবাদ সম্মেলনে এলাকাবাসীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, মো: মোশাররফ হোসেন, মো: এরশাদ হোসেন ও শ্রী মনোরঞ্জন বর্মন প্রমুখ।