পিরোজপুরে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ১০

হযরত আলী হিরুঃ আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পিরোজপুর সদর উপজেলার কদমতলা ইউনিয়নে দুইপক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে।

শুক্রবার রাতে কদমতলা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান হানিফ খান এবং ওই ইউনিয়ন থেকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে ইচ্ছুক শিহাব শেখ এর সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে আহত হানিফ খান এর সমর্থকদের ৩ জনকে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং আরও বেশ কয়েকজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে শিহাব এর সমর্থকদের ৩ জনকে নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া হানিফ খান এর সমর্থক সাইদুল শেখ এবং শিহাব শেখ এর সমর্থক শহীদ শেখ ও আলম শেখকে গুরুতর অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
হানিফ খান এর স্ত্রী নাসিমা আক্তার অভিযোগ করেন, হঠাৎ করে ধারালো অস্ত্র ও লোহার পাইপ নিয়ে শিহাব এর লোকজন তার স্বামীকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করে। এ সময় তার সমর্থকেরা বাধা দিলে তাদেরকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করে শিহাব এর সমর্থকেরা।
অন্যদিকে পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এস এম বায়েজিদ হোসেন অভিযোগ করেন, তার চাচা শিহাবের উপর অতর্কিতভাবে হানিফ খানের নেতৃত্বে হামলা করা হয়।
পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ইসতিয়াক আহম্মেদ জানান, সাইদুল শেখ, শহীদ শেখ ও আলম শেখকে গুরুতর অবস্থা হওয়ার কারনে তাদের উন্নতর চিকিৎসার কারনে খুলনা মডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে ।
পিরোজপুর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাঃ নূরুল ইসলাম বাদল জানান, বর্তমানে কদমতলার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে এবং সেখানে পুলিশের নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।