লালমনিরহাটে বিজিবি ও বিএসএফ গোপালপুর সেক্টর পর্যায়ে অনানুষ্ঠানিক সৌজন্য সাক্ষাত

এস.আর শরিফুল ইসলাম রতনঃ  লালমনিরহাট ব্যাটালিয়ন (১৫ বিজিবি) এর ঝাউরানী বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় সীমান্ত পিলার ৯১২/৩-এস এর নিকট হতে আনুমানিক ৩ কিঃ মিঃ ভারতের অভ্যন্তরে সিতাই উচ্চ বিদ্যালয়ে বিজিবি সেক্টর কমান্ডার, রংপুর এবং প্রতিপক্ষ ডিআইজি বিএসএফ, গোপালপুর সেক্টর এর মধ্যে পরিচিতিমূলক অনানুষ্ঠানিক সৌজন্য সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়।

গতকাল এ সৌজন্য সাক্ষাতে বিজিবির ১১ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে দেন সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আলীমুল করিম চৌধুরী এবং ভারতের পক্ষে ০৯ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন ডিআইজি রবীন্দ্র সিং রাওয়াত (ভিএসএম)।

রংপুর সেক্টর কমান্ডার ভারতের প্রাক্তন রাষ্টপতি প্রণব মুখার্জির মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে সামগ্রিক কার্যক্রম শুরু করেন। উক্ত সাক্ষাতকারে বিজিবি-বিএসএফ এর ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক, ষ্টাফ অফিসার ও সংশ্লিষ্ট এলাকার কোম্পানী কমান্ডারগণ উপ¯ি’ত ছিলেন। সাক্ষাতকারের আলোচনা পর্বে সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফ এর নজরদারী বৃদ্ধি করা, চোরাচালান প্রতিরোধ, নারী ও শিশু পাচার, অবৈধ অনুপ্রবেশ, বাংলাদেশ সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির সমর্থনে মাদক পাচার বন্ধ করা এবং আন্তঃ সীমান্ত অপরাধ হ্রাস করার বিষয়ে ফলপ্রসূ আলোচনা করা হয়। সীমান্তবর্তী বাংলাদেশী জনসাধারণের উপর চোরাচালান প্রতিরোধের উদ্দেশ্যে মরণঘাতী অস্ত্র ব্যবহার তথা সীমান্ত হত্যা বন্ধ করার ব্যাপারে বিজিবি প্রতিনিধি দল বিএসএফকে অনুরোধ করেন। এছাড়া উভয় দেশের মধ্যে বিদ্যমান শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার লক্ষ্যে সীমান্ত এলাকায় সৃষ্ট যেকোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা একে অপরের সার্বিক সহযোগিতা ও যোগাযোগের মাধ্যমে দ্রæত সমাধান করে বিজিবি-বিএসএফ এর মধ্যে বিদ্যমান বন্ধুত্বপূর্ণ সুসম্পর্ক আরো সুদৃঢ় করার ব্যাপারে উভয় পক্ষ সম্মত হন। পরিশেষে অত্যন্ত সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে সৌজন্য সাক্ষাত শেষ হয় বলে ১৫ ব্যাটালিয়ন (বিজিবি) সাংবাদিকদের জানান।