বিক্ষোভের মুখে লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ, ভেঙে গেল সরকার

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ লেবাননের বৈরুত বন্দরে বিস্ফোরণের জেরে জনগণের বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব। সম্প্রতি দেশটির মন্ত্রিসভার কয়েকজন সদস্য পদত্যাগ করার পর তিনি (সোমবার) জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে নিজের পদত্যাগের ঘোষণা দেন। তাঁর মন্ত্রিসভার সব সদস্যও পদত্যাগ করেছেন। এর মধ্য দিয়ে দেশটির সরকার ভেঙে গেল।

প্রধানমন্ত্রী তাঁর পদত্যাগের ঘোষণা দেওয়ার আগে  পদত্যাগ করেন দেশটির বিচারমন্ত্রী, তথ্যমন্ত্রী ও পরিবেশমন্ত্রী। কিন্তু বিক্ষোভকারীরা প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে অনড় ছিলেন। পরে স্থানীয় সময় সোমবার সন্ধ্যায় পদত্যাগের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব।

জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘আজ আমরা জনগণের ইচ্ছাকে ‍অনুসরণ করছি। জনগণ সাত বছর ধরে লুকিয়ে রাখা এই বিপর্যয়ের জন্য দায়ী ব্যক্তিদের বিচার চায়। তারা সত্যিকারের পরির্তন চায়। এই বাস্তবতায় দাঁড়িয়ে আমি আজ এই সরকারের পদত্যাগ ঘোষণা করছি।” তিনি বিস্ফোরণের জন্য দায়ীদের শাস্তি নিশ্চিত করার আহ্বান জানান।

৪ আগস্টে বৈরুত বন্দরের বিস্ফোরণে দেড় শতাধিক মানুষ নিহত হয়। আহত হয় ৬ হাজারেরও বেশি মানুষ। ওই ঘটনায় লেবাননে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ বিক্ষোভকারীদের নিয়ন্ত্রণে টিয়ারগ্যাস ব্যবহার ও লাঠিপেটা করে। বিক্ষোভকারীরা গত রোববার দেশটির পার্লামেন্ট ভবনের সামনে অবরোধ সৃষ্টি করলে পুলিশ তাদের ওপর চড়াও হয়। এর আগে শনিবার বিক্ষোভকারীরা দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে হামলা চালায়। বিক্ষোভকারীরা এক পর্যায়ে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, ব্যাংক ও ঘরবাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে হতাহতেরও ঘটনা ঘটে।

ওই ঘটনার জের ধরে এর আগে লেবাননের আইনমন্ত্রী মারিয়া ক্লাউদে নাজিম, তথ্যমন্ত্রী মানাল আব্দেল সামাদ ও পরিবেশবিষয়ক মন্ত্রী ড্যামিয়ানোস কাত্তার নিজ নিজ পদ থেকে সরে দাঁড়ান।