পিরোজপুরে চিনা নাগরিক হত্যায় ছিনতাইকারী সিরাজ গ্রেফতার

হযরত আলী হিরুঃ পিরোজপুরের কঁচা নদীর উপর নির্মাণাধীন ৮ম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতুর টেকনিশিয়ান চীনা নাগরিক লাওফাং (৫৮) হত্যার সাথে জড়িত সন্দেহে সিরাজ শেখকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার গভীর রাতে পিরোজপুর শহরতলীর কুমারখালী এলাকার একটি বাগান থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম বাদল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আটক অভিযানে পিরোজপুর সদর থানা পুলিশের পাশাপাশি গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা অংশ নেয় বলে জানান ওসি। আটক সিরাজ শেখ এর বাড়ি পিরোজপুর সদর উপজেলার শারিকতলা-ডুমরিতলা ইউনিয়নের গুয়াবাড়িয়া এলাকায়। তার বাবার নাম সাত্তার শেখ।

ওসি জানান, চীনা নাগরিক লাওফাং হত্যার ঘটনায় ৮ম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতুর প্রকৌশলী চাও চিং হুয়া বাদি হয়ে অজ্ঞাত পরিচয় আসামির বিরুদ্ধে পিরোজপুর সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

গতকাল বুধবার সেতু প্রকল্পের নির্মাণ শ্রমিকদের বেতনের টাকা নিয়ে প্রকল্প এলাকায় যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তদের ছুড়িকাঘাতে নিহত হন লাওফাং। শারিকতলা-ডুমরিতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজমীর হোসেন জানান, নিহত লাওফাং সেতু প্রকল্পটির ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে ১৭ ব্যুরো গ্রুপের সাব কন্ট্রাকটর ও টেকনিশিয়ান ছিলেন। তিনি সেতু প্রকল্প এলাকা কুমির মারায় থাকতেন।আজমীর হোসেন বলেন, তার বাড়ি থেকে আনুমানিক মাত্র ৮শ গজের মতো দূরে সেতুর পিয়ারের কাজ চলছে। সেই কাজে নিয়োজত শ্রমিকদের বেতন দিতে গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় ব্যাগ ভর্তি টাকা নিয়ে সাইকেলে করে একাই রওনা হন। পথে তাকে ছিনতাইকারীরা ছুকিাঘাত করে তার সাথে থাকা টাকা নিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা লাওফাংকে উদ্ধার করে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান লাওফাং।

পিরোজপুর জেলা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার নিজাম উদ্দিন জানান বুকের ডান পাশে ছুরির আঘাতে গভীর ক্ষত হয়ে অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণে লাওফাং মৃত্যু হয়েছে।

এ দিকে চীনা নাগরিক হত্যার খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বরিশাল রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি শফিকুল ইসলাম। এর আগে গতকাল বুধবার রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন বরিশাল র‌্যাব-৮ এর সিও আতিকা ইসলাম ও বরিশাল রেঞ্জ পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি এহসান উল্লাহ।