পাইকগাছায় চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলনে

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ খুলনার পাইকগাছা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে সরকারি দলের  নির্বাচন আচরণ বিধি লংঘনের প্রেক্ষিতে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার বেলা ১১টায় বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ডাঃ আব্দুল মজিদের প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান খুলনা জেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাড. শফিকুল আলম মনা।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর পূর্বেই বিএনপির প্রার্থী আব্দুল মজিদ ও তার সঙ্গীয়দের উপর আলমতলায় আওয়ামীলীগের লোকজন হামলা করে। এরপর ৮ অক্টোবর গড়ইখালীর পাতড়াবুনিয়ায় জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক সামছুল আলম পিন্টুর উপর, ৯ অক্টোবর পাইকগাছার জিরো পয়েন্টে ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক নাজমুল হুদা মিন্টু, রুহিন ও ওয়াদুদের উপর হামলা করে। ৪ অক্টোবর সোলাদানার ভিলেজ পাইকগাছায়, ৬ অক্টোবর গদাইপুর চরমনই নামক স্থানে ধানের শীষের প্রচার মাইক ভাংচুর করে। সংবাদ সম্মেলনে মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, গড়ইখালী, লস্কর, চাঁদখালী, হরিঢালী ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের কতিপয় নেতৃবৃন্দ বিএনপি নেতাকর্মীদের নানাভাবে হুমকি-ধামকি অব্যাহত রেখেছে। ২০ অক্টোবর নির্বাচনের দিন কেউ বিএনপির এজেন্ট হলে নির্বাচনের পরে তাদেরকে বাড়ী-ঘর জালিয়ে দেয়ার হুমকি দেয়ায় তিনি তীব্র নিন্দা জানান। বিষয়টি দেখভালের জন্য প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান।
এ ব্যাপারে থানা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার সংগঠিত ঘটনার বর্ণনা দিয়ে লিখিত অভিযোগের বিষয়টি দ্রুত আমলে নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের আহবান জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, জেলা সাধারণ সম্পাদক আমির এজাজ খান, এ্যাড. জি,এ,অধ্যাপক তরিকুল ইসলাম, সবুর,এড,মোমরেজুল ইসলাম,শেখ আঃ রশিদ মনিরুজ্জামান মন্টু,আবু হোসেন বাবু সামছুল আলম পিন্টু, বাপ্পী, এসএম এমদাদুলহক সহ আরো অনেকে।