ঠাকুরগাঁওয়ে আশরাফ আলীর হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টারঃ ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে সোমবার সকালে আম ব্যবসায়ী আসরাফ আলী হত্যার ঘটনায় জড়িতদের ছবি সম্মিলিত ব্যনার ফেস্টুন নিয়ে উপজেলার পীরগঞ্জ পূর্ব চৌরাস্তা থেকে শুরু করে উপজেলা পরিষদ পর্যন্ত বিক্ষোভ করে প্রায় এক হাজারেরও অধিক এলাকাবাসী। আম ব্যবসায়ী আশরাফ আলী হত্যার ঘটনায় জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে ২নং কোষারানীগঞ্জ ইউপির এলাকাবাসী ও পীরগঞ্জ উপজেলার সুশীল সমাজের ব্যাক্তি বর্গ।  পীরগঞ্জ পূর্ব চৌরাস্তা থেকে শুরু করে উপজেলা পরিষদ পর্যন্ত বিক্ষোভ করে প্রায় এক হাজারেরও অধিক এলাকাবাসী। তাদের দাবি একটায় আশরাফ আলী হত্যার আসামিদের ফাঁসি চাই দিতে হবে। এ মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন নিহত আম ব্যাবসায়ীর বৃদ্ধ মাতা আসমা বেওয়া, স্ত্রী সোহাগী বেগম, বড় ছেলে সোহাগ আলী পুষ্প,ছোট ছেলে অন্তর, নিহতের বড় ভাই একরামুল ইসলাম, ছোট ভাই জহিরুল ইসলাম সহ পরিবারের প্রত্যেকটি সদস্যগন।এছাড়াও পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য ইমদাদুল হক, উপজেলা আঃ লীগের সাধারন সম্পাদক রেজওয়ানুল হক বিপ্লব, পৌর মেয়র কশিরুল আলম, ২নং কোষারানীগঞ্জ ইউপির ৩নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ তোসাদ্দেক হায়দার আকাশ, ২নং ইউপি আঃ লীগের সাধারন সম্পাদক বিরেশ চন্দ্র রায়, ২নং ইউপি আওয়ামীলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াজকুরুনী, ২নং ইউপি ছাত্রলীগ সভাপতি আসাদুজ্জামান আশিক সহ অনেকে ।

উল্লেখ্যঃ যে, গত সপ্তাহের ১২’জুলাই রবিবার রাতে নিখোঁজ হয় আম ব্যবসায়ী আশরাফ আলী, পরদিন সোমবার সকালে পীরগঞ্জ উপজেলার খটসিঙ্গা শিবরামবাটি নামক স্থানে রাস্তার ধারে রক্তাক্ত মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ। নিহত আশরাফ আলী ২নং কোষারানীগঞ্জ ইউপির দলপতিপুর গ্রামের মৃত কালু মোহাম্মদের ছেলে। এ বিষয়ে মৃত আশরাফ আলীর ছোট ভাই জহিরুল হক অজ্ঞাত নামা পীরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করলে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ বিভিন্ন প্রযুক্তি ব্যবহার করে তদন্তের ভিত্তিতে হত্যা কাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে প্রধান আসামী উপজেলার কোষারানীগঞ্জ ইউপির ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য ভামদা গ্রামের আমিনুল ইসলামের ছেলে সাদ্দাম হোসেন ও পরে জগথা কলেজ পাড়া গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে রোকনুজ্জামান রোকন, দুর্গাপুর গ্রামের দরিমান আলীর ছেলে বেলালকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।