ছেলের জন্মদিনে হাফেজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মুখে হাসি ফুটালেন নৌ ওসি সুজন পাল

শামীম আহাম্মেদ : জন্মদিন আসলে গান বাজনা, পার্টি নৃত্য আর কত কি আয়োজন, আর যদি হয় অন্য ধর্মের লোক তাদের তো আয়োজন একটু বেশিই থাকে।

কিন্তু ইলিশা নৌ পুলিশের ওসি সুজন পাল হিন্দু ধর্মের লোক হয়েও নিজের একমাত্র ছেলে স্বপ্নিল পাল গল্প এর ৩য় জন্মদিনে হাসি ফুটিয়েছেন দরিদ্র পরিবারের ১১জন হাফেজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের।
শুক্রবার সকালে রাজাপুর ইউনিয়নের শান্তিরহাট সংলগ্ন আবু বক্কর (রা) ইসলামী কমপ্লেক্স হাফেজিয়া মাদ্রাসায় গিয়ে ১১ জন শিক্ষার্থী কে ১ সেট করে কমপ্লিট পোশাক দিয়েছেন সুজন পাল।
ইলিশা সমাজ কল্যাণ সেচ্ছাসেবী সংগঠনের মাধ্যমে তিনি যাচাই-বাছাই করে ১১ জন শিক্ষার্থীর মাপ একজন টের্ইলার মাস্টার দ্বারা নিয়ে আজ নিজে গিয়ে মাদ্রাসায় বিতরণ করে এসেছেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন নৌ পুলিশের এ এস আই শরিফুল ইসলাম, মাদ্রাসার পরিচালক হাফেজ ইব্রাহীম, ইলিশা সমাজ কল্যাণ সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সহ সভাপতি ইকবাল হোসেন রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়ামিন হোসেন, দপ্তর সম্পাদক মোঃ সোহেল, স্বাস্থ্য কর্মকতা নুর মোহাম্মদ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও শিক্ষকরা।
নৌ পুলিশের ওসি সুজন পাল বলেন, আমি চিন্তা করেছি, জন্মদিনে অনুষ্ঠান করে কিছু টাকা খরচ করলে শেষ কিন্তু এই হাফেজিয়া মাদ্রাসার ছাত্ররা ও আমার সন্তানের মতই তাই তাদের জন্য এই আয়োজন করেছি, বাচ্ছারা নতুন পোশাক পেয়ে যে হাসি দিয়েছে, এতেই আমি তৃপ্তি।
মাদ্রাসার পরিচালক হাফেজ ইব্রাহীম বলেন, একজন হিন্দু পুলিশ কর্মকতার এমন মনোভাব দেখে আমি সত্যিই মুগ্ধ, ঈদ কে সামনে রেখে দরিদ্র পরিবারের সন্তানরা অনেক খুশি হয়েছে।
সোনিয়া পাল ও সুজন পালের একমাত্র ছেলে স্বপ্নিল পাল গল্পের জন্য ও দোয়া করেছেন তিনি।