করোনা সংক্রমণরোধে সরকার মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছে -সিটি মেয়র

খুলনা প্রতিনিধি: খুলনা জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের উদ্যোগে গতকাল দুপুরে নিজস্ব কার্যালয় চত্তরে স্বাধীনতার মহান স্থাপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এবং বৈশ্বিক মহামারী করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ নগরীর ২০ ও ২১ নম্বর ওয়ার্ডের একশত নিম্ন আয়ের শ্রমজীবী, অসহায় ও হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে ছিল সাত কেজি করে চাল, তিন কেজি আলু, এক কেজি ডাল, এক লিটার তেল, এক কেজি লবণ, ১০টি ডিম এবং একটি মাস্ক। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন। খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে সিটি মেয়র বলেন, করোনা সংক্রমণরোধে মাস্ক ব্যবহার সরকার বাধ্যতামূলক করেছে। এখন পর্যন্ত করোনার কোন ঔষধ তৈরি হয়নি। দেশের জনগণ তেমন সচেতন নয়। রাস্তা, দোকান, বাজার, শপিংমলসহ বিভিন্ন স্থানে এখন মাস্ক ছাড়াই মানুষকে চলতে দেখা যায়। করোনাভাইরাস এখনও শেষ হয়ে যায়নি। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব এবং সচেতনতা বৃদ্ধির বিকল্প নেই। নিজের এবং পরিবারের সদস্যদের করোনা থেকে বাঁচাতে হবে। করোনা মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সচেষ্ট রয়েছেন। তিনি আরও বলেন, ১৯৭৫ সালে ১৫ আগস্ট দেশের স্বাধীনতাবিরোধী ষড়যন্ত্রকারীদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ মদদে ঘাতকচক্রের হাতে ধানমন্ডির নিজ বাসবভনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে নিহত হন। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তাঁর আদর্শকে হত্যা করতে পারেনি। জাতির পিতার জন্য আমরা একটি সুন্দর দেশ পেয়েছি। তাঁর জন্ম না হলে বাংলাদেশ সৃষ্টি হতো না। জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার এসএম আউয়াল হকের সভাপতিত্বে এসময় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব দীলিপ কুমার ঘোষ, মহানগর যুবলীগের মোঃ সফিকুর রহমান পলাশ, শ্যামল সিংহ রায়, ২০ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ মুজিবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। জেলার নয়টি উপজেলার এবং খুলনার প্রাণিসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের একদিনের বেতনের অর্থ দিয়ে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করে অতিরিক্ত জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ অরুণ কান্তি মন্ডল।